Computer General Concept Bangla

Computer  কি?

কম্পিউটার হচ্চে একটি  লেক্ট্রনিক্স  অত্তাধুনিক যন্ত্র বা ডিভাস যা গ্রিক শব্দ  Compute থেকে ইংরেজি Computer শব্দের উৎপত্তি Compute শব্দের  অর্থ হচ্ছে  গণনা  কারি  বা  হিসাবকারী যন্ত্র , গত এক সময় শুধু গুন, ভাগ, যোগ কাজ গুলো সম্পুরন করা হত।বর্তমানে কম্পিউটার বহুমুখী কাজে ব্যবহারের ফলে শুধু গণনার কাজে নয়, আরও বিভিন্ন কাজে ব্যবহার হচ্ছে যেমন- শিক্ষা, চিকিৎসা, তথ্য আদান-প্রদান, ব্যবসা আরও বিভিন্ন কাজে।

কম্পিউটার উৎপত্তি

কম্পিউটার  এর আবিস্কারের এবং উন্নয়নের পেছনে মানুষের শত বছরের গবেষণা।

আধুনিক কম্পিউটারের মুল নীতি নির্ধারক হচ্ছে বিশিষ্ঠ ব্রিটিশ বিজ্ঞানী গনিতবিদ চার্লস ব্যবেজ। ১৮৮৭ ‍সালে ডাক্তার হারমান হরেলিখ  আমেরিকার আদমশুমারির কাজ  অল্প  সময়ে শেষ করার জন্য চার্লস ব্যবেজের কম্পিউটারের মূলনীতি নিয়ে গবেষনা শুরু করলেন। তারপর ১৯১১ সালে দুটি ভিন্ন কোম্পানীর সহযোগিতায় তিনি কম্পিউটিং, টেবুলেটিং ও রেকডিং কোম্পানী প্রতিষ্ঠা করেন। তারপর থেকে বিখ্যাত কোম্পানী আইবিএম আধুনিক কম্পিউটার যাত্রা শুরু করেন।

কম্পিউটার পরিচালনার পদ্ধতি?

কম্পিউটার সাধারনত তিনটি পদ্ধতিতে পরিচালিত হয়ে থাকে যেমন-

  1. Input Device – Mouse, Key-Board, Scanner, Pen-drive etc
  2. CPU (Central Processing Unit)
  3. Output Device – Monitor, Printer.

 

কম্পিউটার এবং মানুষের মধ্যে পার্থক্য?

মানুষ কম্পিউটার থেকে অনেক বুদ্ধিমান কারণ কম্পিউটার হাতে তৈরি। এখানে কম্পিউটার যে কোন কাজের ফলাফল অতি তারাতারি ব্যবহার কারির সামনে প্রদর্শন করতে পারে কিন্ত মানুষ তা পারেনা তারপরও মানুষ অনেক বুদ্ধিমান।কম্পিউটারের নিজস্ব কোন বুদ্ধি নেমানুষ যখন কম্পিউটারে সফ্টওয়ার সেট করে দিবে এবং মানুষ যে সকল তথ্য প্রবেশ করবে সেই অনুযায়ী কম্পিউটার তথ্য প্রদর্শন করে থাকে।

Computer এর বৈশিষ্ঠ্য?

১। দ্রুতগতি

২। নির্ভূলতা

৩। স্মৃতি ধারন ক্ষমতা

৪। ক্লান্তিহীনতা

৫। বহুমুখিতা

৬। যুক্তিমূলক কাজ

কম্পিউটার  প্রজন্ম ?

পরিবর্তন বা বিকাশের এক একটি ধাপ বা পর্যায় কে কম্পিউটার প্রজন্ম বা জেনারেশন বলে।

কম্পিউটার প্রজন্ম বা জেনারেশন  কে ৫ ভাগে ভাগ করা হয়েছে। যথা:

১। প্রথম প্রজন্ম কম্পিউটার (১৯৪৬-১৯৫৯)

২। দ্বিতীয় প্রজন্ম কম্পিউটার (১৯৫৯-১৯৬৫)

৩। তৃতীয় প্রজন্ম কম্পিউটার (১৯৬৫-১৯৭১)

৪। চতুর্থ প্রজন্ম কম্পিউটার (১৯৭১-১৯৮০)

৫। পঞ্চম প্রজন্ম কম্পিউটার (১৯৮০-বর্তমান -ভবিষ্যৎ)

প্রথম প্রজন্ম কম্পিউটারের বৈশিষ্ঠ্য:

১। আকারে খুব বড়।

২। ভ্যাকুয়াম টিউবের ব্যবহার।

৩। সীমিত তথ্য ধারনাক্ষমতা

৪। ভ্যাকুয়াম টিউবের উত্তাপ সমস্যা।

উদাহারন: ABC, ENIAC , EDVAC,

MARK-I, MARK-II,  MARK-III Etc

দ্বিতীয় প্রজন্ম কম্পিউটার-

দ্বিতীয় প্রজন্ম কম্পিউটারের বৈশিষ্ঠ্য:

১। আকৃতি সংকোচন।

২। ট্রানজিস্টারের ব্যবহার।

৩। প্রধান স্মৃতি হিসেবে চৌম্বক কোর স্মৃতির ব্যবহার।

৪। উচ্চ গতি সম্পন্ন ইনপুট-আউটপুট ডিভাইসের ব্যবহার।

উদাহারন: IBM1620, IBM1400, IBM1600  Etc

তৃতীয় প্রজন্ম কম্পিউটার-

তৃতীয় প্রজন্ম কম্পিউটারের বৈশিষ্ঠ্য:

১। IC ব্যবহার।

২। RAM & ROM এর ব্যবহার।

৩। আকৃতি সংকোচন।

৪। মনিটর ও লাইন প্রিন্টারের ব্যবহার।

৫। দাম কম।

৬। কাজ করার ক্ষমতা বহুগুণ বৃদ্ধি।

উদাহারন: IBM – 370, PDP – 8 Etc

চতুর্থ প্রজন্ম কম্পিউটার-

চতুর্থ প্রজন্ম কম্পিউটারের বৈশিষ্ঠ্য:

১। মাইক্রোপ্রসেসর নামক আইসির ব্যবহার।

২। তথ্য ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি।

৩। মাইক্রো কম্পিউটারের উদ্ভব।

৪। দাম তুলনামূলক অনেক কম।

উদাহারন: IBM-3033, IBM-4341 Etc

পঞম প্রজন্ম কম্পিউটার-

পঞম প্রজন্ম কম্পিউটারের বৈশিষ্ঠ্য:

১। তথ্য ধারণক্ষমতার ব্যপক উন্নতি।

২। বহু মাইক্রোপ্রসেসর বিশিষ্ট কম্পিউটারের ব্যবহার।

৩। সফ্টওয়ারের উন্নতি।

৪। কৃতিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার।

উদাহারন: Pentium-I, Pentium-II, Pentium-III, Pentium-VI Etc

কম্পিউটারের সংগঠন-

কম্পিউটারের কাজের উপর ভিত্তি করে ৩ টি ভাগে ভাগ বা সংগঠন করা হয়েছে যথা-

১। Input Device (তথ্য গ্রহন কারী যন্ত্র)।

১। Output Device (তথ্য বাহির করার যন্ত্র)।

১। Processing Device (তথ্য  প্রক্রিয়া করার অংশ)।

Input Device (তথ্য গ্রহন কারী যন্ত্র)-

কম্পিউটারের ভিতরে যে কোন তথ্য প্রবেশ করানোর জন্য যে সকল যন্ত্র ডিভাইস ব্যবহার করা তাকে Input Device (তথ্য গ্রহন কারী যন্ত্র) বলে। যথা- Keyboard, Mouse, Scanner, Digital Camera, Pen-Drive, Card-Reader.

Output Device (তথ্য বাহির করার যন্ত্র)-

কম্পিউটারের ভিতরে যে কোন তথ্য বাহির করানোর জন্য যে সকল যন্ত্র ডিভাইস ব্যবহার করা তাকে Output Device (তথ্য বাহির করার যন্ত্র) বলে। যথা- Monitor,Printer,Ploter, Speaker.

Processing Device (তথ্য  প্রক্রিয়া করার অংশ)-

কম্পিউটারের সংগঠনিক অংশগুলোর মধ্যে সিপিইউ (CPU) সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন।কম্পিউটারে কাজ করার সময় আমরা যেসব নির্দেশ দিয়ে থাকি, সেগুলোর গানিতিক বিশ্লেষণ, যুক্তিমূলক বিন্যাস ইত্যাদি যাবতীয় প্রক্রিয়াকরণ এই অংশে করে থাকে যথা-Processor, Mother-Board, Hard-Disk, Ram ইত্যাদি

সিপিইউ CPU (Central Processing Unit)-

সিপিইউ (CPU) এর পূর্ন নাম হচ্ছে Central Processing Unit বাংলা অর্থ হচ্ছে কেন্দ্রিয় প্রক্রিয়াকরন অংশ। ইহাকে কম্পিউটারের মুল অংশ বা মস্তিষ্ক বলা হয়। CPU Unit কম্পিউটারের যাবতীয় কার্যক্রম করে থাকে।

CPU Unit প্রকারভেদ- কার্যক্ষমতার উপর ভিত্তি করে সিপিইউ (CPU) কে ৩ টি ভাগে ভাগ করা হয়- যথা-

1. Control Unit.

2.Arithmetic & logic Unit.

3.Memory.

Control Unit-

কম্পিউটারের ভিবিন্ন অংশের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে, যে যন্ত্রটি যাবতীয় কার্যক্রম নিয়ন্ত্রন করে থাকে তাকে Control Unit বলে.

Arithmetic and Logic Unit-

কম্পিউটরের যাবতীয় কার্যাবলী হিসাব-নিকাশ ও ডাটা বিশ্লেষন করে যে যন্ত্রটি ফলাফল প্রদান করে থাকে তাকে Arithmetic and Logic Unit বলে।

Memory – 

যে কোন ধরনের তত্ত্ব বা তথ্য ও নির্দেশ সমূহ স্থায়ী ও অস্থায়ী ভাবে কম্পিউটারে সংগ্রহ করে রাখার জন্য যে যন্ত্র ব্যবহার করা হয় তাকে Memory বলে।

মেমোরি  সাধারনত ২ প্রকার – যথা-

1. Main Memory.

2. Auxillary Memory.

Main Memory- 

CPU এর সাথে সরাসরি যুক্ত কম্পিউটারের এর ভিতরের স্মৃতিকে Main Memory বলে।ইনপুট এর মাধ্যমে আগত তথ্য ও তত্ত্ব সমুহ প্রধান স্মৃতিতে প্রক্রিয়া করনের জন্য অবস্থান করে।

যথা-

1. RAM (Random Access Memory)

2. ROM (Read Only Memory)

Axillary Memory-

কম্পিউটারে ইনপুটকৃত বিভিন্ন তথ্য কাজ শেষে যে যন্ত্রাংশে সংরক্ষণ বা সেইভ করে রাখা হয় তাকে  Axillary Memory বলে।যথা-

1. HDD (Hard Disk Drive).

2. DVD (Digital Versatile Disc).

RAM কি?

RAM (Random Access Memory) এটি একটি অস্থায়ী মেমোরি।  ইনপুট ডিভাইস হতে প্রথমে তথ্য গুলো র‌্যাম এ এসে জমা হয়, এই তথ্য গুলো তাৎক্ষনিক পড়া এবং দেখা যায় আর যখন কম্পিউটার বন্ধ করে আবার অন করবেন তখন আর এই তথ্য গুলো র‌্যাম থাকবে না তাই র‌্যাম কে অস্থ্যায়ী মেমোরি বলা হয়।

ROM কি?

ROM (Read Only Memory)  ইহা একটি স্থায়ী মেমরি। রম এর তথ্য পড়া যায় কিন্ত এর তথ্য মুছে ফেলা যায় না।এতে ডাটা স্থায়ী ভাবে সংরক্ষিত থাকে। কম্পিউটারে উইন্ডোজ  দেওয়ার সময় রম এর তথ্য গুলো প্রয়োজন পড়ে।

HDD (Hard Disk Drive) কি?

HDD (Hard Disk Drive)  হচ্ছে, কম্পিউটার যাবতীয় তথ্য সংরক্ষনের স্থান। HDD (Hard Disk Drive) তিন ধরনের হয়। যথা-

1. HDD (Hard Disk Drive).

2.SDD (Solid Disk Drive).

3.DVD (Digital Versatile Disc).

Operating System কি?

Operate শব্দ থেকে Operating  শব্দের উৎপত্তি। Operating শব্দের আভিধানিক অর্থ হল পরিচালনা করা। আর  System শব্দের  অর্থ হল পদ্ধতি কে বুঝায়।যখন একটি নতুন কম্পিউটার দোকান থেকে কিনে নিয়ে আসব তখনই আমাকে কম্পিউটারে অপারেটিং সিস্টেম সফ্টওয়ারটি ইনস্টল দিতে হবে,কারন অপারেটিং সিস্টেম সফ্টওয়ারটি কম্পিউটারে সকল যন্ত্রাংশ সমুহকে নিয়স্ত্রন করে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

COVID-19

Leave News